শিরোনাম :
তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, ৩ দিন পর মামলা গোয়াইনঘাটে ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ হচ্ছে ৮টি আশ্রয় কেন্দ্র বসা থেকে হঠাৎ উঠে দাঁড়ালে মাথা ঘোরে? জেনে নিন আসল কারণ সারের বস্তায় ওজনে কম, ঠকছেন চাষিরা ফরিদপুরে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন সাটুরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগীকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কিশোরীকে ছিনিয়ে নিয়ে হত্যা জকিগঞ্জ ইউনাইটেড এসোসিয়েশনের উদ্যোগে বৃক্ষ বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন পেটে জমে থাকা মেদ দূর করে আমলকীর জুস নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে মসজিদের ইমামকে কুপিয়ে হত্যা মাস্ক পরায় কানে ব্যথা, কী করবেন খালি পেটে যেসব খাবার খাওয়া ক্ষতি ডেকে আনে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পানিতে যা মিশিয়ে তৈরি করবেন ভেষজ মানসিক চাপ দূর করে লবঙ্গ সূর্যের আলো কি করোনা মারতে পারে? হঠাৎ তীব্র গরম, সোমবারের অপেক্ষায় সিলেটের মানুষ ছাতক উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবলু এর মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল নবীগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা এমপি মিলাদের সাথে পরামর্শ সভা ক্যানসার প্রতিরোধ করে টমেটো হাটহাজারী মাদ্রাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত বাংলাদেশের আধ্যাত্মিক রাহবার আল্লামা শফী দাঁতের অসহ্য যন্ত্রণায় যা করবেন সিলেটে একদিনে করোনায় আক্রান্তের চেয়ে সুস্থ দ্বিগুণ সিলেটে শনিবার ৯ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে যেসব এলাকায় আল্লামা শফী আর নেই সুগারের মাত্রা কত হলে বুঝবেন আপনার ডায়াবেটিস রসুন যেভাবে ওজন কমায় লঞ্চে নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা, সেই ব্যক্তি গ্রেপ্তার শুক্র-শনিবার নগরীর যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না নবীগঞ্জে বাবার বিরুদ্ধে নিজ মেয়েকে ধর্ষনের অভিযোগ নেইমার নিষিদ্ধ ২ ম্যাচ
মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১৩ অপরাহ্ন




হৃদ্‌রোগে জীবন বাঁচাতে প্রাথমিক চিকিৎসা

প্রতিবেদকের নাম / ২৪৯ Time View
আপডেটের সময় : সোমবার, ৯ মার্চ, ২০২০

সিপিআর কখন দরকার

হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হলে সিপিআর দরকার হয়। হঠাৎ পড়ে গিয়ে কিংবা আকস্মিক কোনো ঘটনায় রোগীর সাড়াশব্দ না পাওয়া, নাড়ির স্পন্দন না পাওয়া, শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়া হলো হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ। এই অবস্থায় সিপিআর পদ্ধতিতে অনেক সময় জীবন বাঁচানো সম্ভব।

সিপিআর যেভাবে দিতে হবে

প্রথম ধাপ: আক্রান্ত ব্যক্তি পানি বা আগুনের কাছে থাকলে তাঁকে সেখান থেকে সরিয়ে আনুন। রাস্তার মাঝখানে থাকলে রাস্তার পাশে নিন।

দ্বিতীয় ধাপ: আক্রান্ত ব্যক্তির প্রতিক্রিয়া পর্যবেক্ষণ করুন। যেমন কাঁধে জোরে ঝাঁকুনি দিন, জোরে জোরে ডাকুন, কোনো সাড়া পাওয়া যায় কি না দেখুন।

তৃতীয় ধাপ: নাড়ির গতি (পালস) এবং শ্বাসপ্রশ্বাস পরীক্ষা করুন। গলার একটু ডান বা বাঁ পাশের ক্যারোটিড ধমনিতে হালকা চাপ দিয়ে নাড়ির গতি পরীক্ষা করুন। শ্বাসপ্রশ্বাস পরীক্ষা করুন বুকের ওঠানামা পর্যবেক্ষণ করে। এই চেকআপ ১০ সেকেন্ডের মধ্যেই সারা দরকার। এর আগে সাহায্য পেতে তৎপর হোন, মুঠোফোনে কাউকে ডাকুন বা ৯৯৯-এ কল করুন।

চতুর্থ ধাপ: এই ধাপেই মূল সিপিআর শুরু করতে হবে। তিনটি ছন্দোবদ্ধ কাজই হলো সিপিআর। কাজ তিনটি হলো, জোরে জোরে বুকের মাঝখানে চাপ দেওয়া, শ্বাসনালি খোলা রাখা এবং মুখে মুখ লাগিয়ে অথবা মাস্কের মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর আক্রান্ত ব্যক্তিকে শ্বাস দেওয়া।

প্রথমেই বুকের মাঝখানে জোরে জোরে চাপ দিতে হবে। এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আক্রান্ত ব্যক্তিকে শক্ত কিছুর ওপর চিত করে শোয়ান। বুকের ওপরের কাপড় সরিয়ে ফেলুন। এবার হাঁটু গেড়ে বসে এক হাতের ওপর আরেক হাতের তালু রেখে দুই হাত দিয়ে বুকের মাঝখানে প্রতি মিনিটে ১০০ বারের মতো এমনভাবে চাপ দিন, যেন বুকের মাঝখানটা ৫-৬ সেন্টিমিটার নিচের দিকে দেবে যায়। প্রতি ৩০ বার বুকে চাপ দেওয়ার পর দুবার আক্রান্ত ব্যক্তির মুখে নিজের মুখ লাগিয়ে শ্বাস দিতে হবে। শ্বাস দিতে আক্রান্ত ব্যক্তির নাক দুই আঙুল দিয়ে চেপে ধরে, মাথা নিচের দিকে রেখে থুতনিকে ওপরের দিকে তুলে নিন। নিজে স্বাভাবিক শ্বাস নিন এবং আক্রান্ত ব্যক্তির মুখে মুখ লাগিয়ে ১ সেকেন্ডে দুবার শ্বাস দিন।

এ রকম ছন্দোবদ্ধ বুকে চাপ এবং শ্বাস দেওয়ার কাজ টানা ২ মিনিট করার পর নাড়ির গতি এবং শ্বাসপ্রশ্বাস পরীক্ষা করে দেখুন। শ্বাসপ্রশ্বাস এবং হৃৎস্পন্দনের গতি বা নাড়ির গতি ফিরে না আসা পর্যন্ত কাজটি করে যেতে হবে এবং দ্রুত আক্রান্ত ব্যক্তিকে সিপিআর দেওয়া অবস্থাতেই হাসপাতালে নিতে হবে। নাড়ির গতি এবং শ্বাসপ্রশ্বাস ফিরে এলে সিপিআর বন্ধ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর